জেলা

ছেলের স্কুল ভ্যানে চালকের বিরুদ্ধে দীঘা দেখানোর নাম করে হোটেলে নিয়ে গিয়ে তরুণী গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ।

ছেলে একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়াশোনা করে। সংসার সামলে ছেলেকে প্রতিদিন স্কুলে দিতে যাওয়া আনতে যাওয়া সমস্যার। তাই তাকে ইস্কুল ভ্যানে দিয়েছিল শিশুটির পরিবার। এতেই অন্ধকার নেমে এলো বাড়িতে। প্রতিদিন স্কুল ভ্যান ড্রাইভার শিশুটিকে বাড়িতে দিতে আসত এবং নিতে আসত। এর ফলে শিশুটির মায়ের সাথে তার বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তারপরেই দীঘায় সমুদ্র দেখানোর নাম করে গৃহবধূকে দীঘার একটি হোটেলে নিয়ে গিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ ধৃত ব্যক্তির বাড়ি পটাশপুর থানার দ্বারিকাপুর গ্রামে বলে জানিয়েছে পুলিশ ৷ গৃহবধূর অভিযোগ তিনি সরল বিশ্বাসে ওই যুবককে বিশ্বাস করেছিলেন।

তাকে ওই যুবক বলেছিল দীঘার সমুদ্র দেখাবে। সে তার কথা বিশ্বাস করে সমুদ্র দেখতে গিয়েছিলে।কিন্তু ওই যুবক তাকে একটি হোটেলের ঘরে নিয়ে গিয়ে একাধিকবার জোর করে ধর্ষণ করে। ইতিমধ্যেই আদালত ওই গৃহবধূর গোপন জবানবন্দি ও নিয়েছে। কিন্তু স্থানীয়রা প্রশ্ন তুলেছেন একজন গৃহবধূ ছেলের গাড়ির ড্রাইভারের সাথে কিভাবে দীঘা চলে গেলেন? ঠিক কি কারণে হোটেলের ঘরের উঠেছিলেন? সব মিলিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। তবে স্কুল ভ্যান চালকের পরিবারের দাবি ওই গৃহবধূ শুধুমাত্র বন্ধু ছিল না ওই গৃহবধূ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ভ্যান চালককে ফাঁসিয়েছে।

 13,562 total views,  87 views today

Leave a Reply