দেশ

আপাতত বন্ধ অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট, ভরসা এখন পাড়ার ‘শঙ্কর মুদি’-রাই

কয়েক মাস আগে রিলিজ হওয়া বাংলা সিনেমা শঙ্কর মুদি সিনেমাটার কথা নিশ্চয় সকলের মনে আছে। সিনেমার গল্পটা বর্তমান প্রেক্ষাপটে বেশ উল্লেখযোগ্য। তাতে দেখা যায় পাড়ার একসময়ের ভরসা ছিল শঙ্কর মুদির দোকান। কিন্তু ধীরে ধীরে শপিংমলমুখী হতে শুরু করেন মানুষ। এমনকী চলে অনলাইনে কেনাকাটাও। বিক্রিবাটা একেবারে তলানিতে ঠেকে শঙ্কর মুদির মতো ছোটো দোকানদার। কিন্তু করোনার জেরে এবার ফের মানুষের ভরসা হয়ে উঠেছে পাড়ার সেই মুদি দোকানগুলি। পুঁজিবাদের কাছে ফের মাথা তুলে দাঁড়াচ্ছে ছোট ব্যবসায়ীরা। করাণ মহামারি করোনার জেরে এবার আপাতত বিক্রি বন্ধ করে দিল ফ্লিপকার্ট, অ্যামাজনের মতো অনলাইন সংস্থা। তাই ঘরের পাশের মুদির দোকানেই এখন ভরসা হয়ে উঠেছে সাধারণ মানুষের।

ঘরে বসে জিনিসপত্র কেনার কথা করোনা জেরে কিছু দিনের জন্য ভুলে যেতে হবে মানুষকে। জানা গেছে করোনার কারণে দেশে জারি হয়েছে লকডাউন। তার জেরে জিনিসপত্রের আমদানি যেমন বন্ধ হয়ে গেছে, ঠিক তেমনই জিনিসপত্র রপ্তানির ক্ষেত্রেও দেখা দিয়েছে সমস্যা। জিনিস পত্র বাড়ি বাড়ি দিতে যাওয়ার জন্য যে সমস্ত সেলসম্যানরা কাজ করেন, তাঁরা করোনার জেরে বাইরে বেরোতে পারছেন না। ট্রাক চলাচলও বন্ধ। সে কারণেই অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্ট সংস্থা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিছুদিনের জন্য এই সংস্থাগুলি মাল বিক্রি বন্ধ করে দেওয়ায়, অনলাইনে অ্যাপ খুললে তাদের সাইট থেকে কেনা যাচ্ছেনা জিনিসপত্র। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন হোম-ডেলিভারি ব্যবস্থা চলবে, বন্ধ হবে না। রাস্তায় বেরোলেই পুলিশের হাতে মার খচ্ছে খাবার পৌঁছাতে যাওয়া সেলসম্যানরা। সে কারণে মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক কর্তাদের জানিয়ে দিয়েছেন হোম ডেলিভারির খাবার নিয়ে গেলে তাদের ছেড়ে দিন। তাই বাড়িতে বসে খাবার পাবেন আপনি।

 288 total views,  7 views today

Leave a Reply