জেলা

কামারপুকুরে রথযাত্রায় অংশ নিতে না পেরে হতাশ ভক্তরা

মঙ্গলবার পালিত হল রথযাত্রা। এবছর কামারপুকুর রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন আয়োজিত রথযাত্রায় অংশ নিতে পারলেন না অগণিত সাধারণ মানুষ। রথের চাকা ঘুরল মঠ চত্বরেই। সামাজিক দূরত্ব বিধি বজায় রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে মঠ ও মিশন কর্তৃপক্ষ বলে জানা গেছে।

মঠ ও মিশন সূত্রে জানা গেছে, অনান্যবছর রথের দিন বিকেলে মঠের নাট মন্দিরের সামনে রথ রেখে পুজো করা হয়। সেই সময় জগন্নাথদেবকে ফল, মিষ্টি, জিলিপি ইত্যাদি ভোগ দেওয়া হয়। সেখানেই মন্দির থেকে ঠাকুর রামকৃষ্ণদেব রথে উপবিষ্ট জগন্নাথদেবকে দেখেন। তারপরেই রথের যাত্রা শুরু হয়। আশ্রম থেকে কামারপুকুর, শ্রীপুর, চটি হয়ে মুকুন্দপুর ঘুরে রথ ফিরে আসে মন্দিরে। উল্টো রথের দিন ওই পথটি হয় বিপরীতমুখী। এছাড়া ঢাক, কীর্তনের দল, ব্যান্ডপার্টি শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা হাজার হাজার মানুষ কীর্তনে মুখরিত হয়ে ওঠেন। কামারপুকুরজুড়ে রথ উৎসব চলে। পর্যটকরাও তাতে শামিল হন। কিন্তু, এবার করোনা আতঙ্কে সমস্ত কিছুই বাতিল করা হয়েছে।

কামারপুকুর রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী লোকোত্তরানন্দজি মহারাজ বলেন, প্রায় ২৫ বছর আগে এই রথের মাধ্যমেই মঠে রথযাত্রার সূচনা হয়েছিল। প্রতিবছর সেই রথই টানা হয়। কিন্তু এবছর করোনা ভাইরাসের প্রকোপের জন্য রথ মঠের বাইরে বের হল না। তবে মঠের ভিতরেই নিয়ম নিষ্ঠা মেনে পুজো করা হল। মঠের সন্ন্যাসীরাই শুধু রথের দড়ি টানলেন। মঠের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে নিয়ে গিয়ে রাখা হল রথটি। এই প্রথমবার রথের দড়ি স্পর্শ করতে পারলেন না স্থানীয় বাসিন্দা ও ভক্তরা।

 660 total views,  4 views today

Leave a Reply