জেলা

নৈহাটিকাণ্ডের এনআইএ তদন্তের দাবি বিজেপি সাংসদ লকেট চচট্টোপাধ্যায়ের

নৈহাটিতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় এন আই এ তদন্তের দাবি তুললেন হুগলি লোকসভার সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।এই বিষয়ে সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন পুলিশের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন। বোমা বিস্ফোরণের সঙ্গে যুক্ত চক্রান্তকারীদের সাহায্য করছে বাংলার পুলিশ। খাগড়াগড় বিস্ফোরণ,পিংলা বিস্ফোরণের ঘটনার সঙ্গে যুক্ত জেহাদিরা একইভাবে নৈহাটির বোম বিস্ফোরণ ঘটনা সঙ্গে যুক্ত বলে মনে করেন হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। এটা বাজি কারখানা ছিল না।

এটা বিস্ফোরক কারখানা ছিল এমনটাই বললেন লকেট। বৃহস্পতিবার হুগলি লোকসভা কেন্দ্রে সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় নৈহাটি বিস্ফোরণকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ীঘর পরিদর্শন করেন।পাশে থাকার আশ্বাস দেন। তিনি নৈহাটির বিস্তীর্ণ এলাকায় সরেজমিনে খতিয়ে দেখেন। পাশাপাশি চুঁচুড়ায় বোম নিষ্ক্রিয় করার ঘটনায় ক ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে যান। উল্লেখ্য নৈহাটিতে বাজেয়াপ্ত বোম পুলিশ নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে বিস্ফোরণ ঘটে। গঙ্গার রামঘাটে পুলিশ বোম নিষ্ক্রিয় করার সময় বিস্ফোরণ ঘটে। নৈহাটি ছাড়াও কেঁপে উঠল চুচুঁড়া। প্রতিবাদে পুলিশের ২টি গাড়িতে আগুন। চুঁচুড়ার চন্দননগর পুলিশ কমিশনারকে ঘিরে বিক্ষোভ। ৩ তারিখ নৈহাটিতে বেআইনি বোম কারখানায় বিস্ফোরণে ৪জনের মৃত্যু হয়। তারপরেই বেআইনি বোম বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ।যদিও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে এটি বোম ছিল না। এটি ছিল বাজির কারখানা। গঙ্গার পাড়ে পুলিশ সেই বাজেয়াপ্ত বাজি নিষ্ক্রিয় করার সময়ই বিস্ফোরণ হয়।চুঁচুড়া পরিদর্শনের পর লকেট চট্টোপাধ্যায় জানান ভয়াবহ ঘটনা। ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় সাধারণ মানুষের। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বেশকিছু বোমা নিষ্ক্রিয় করতে আসেন বোম স্কোয়াডের আধিকারিকরা।

চলছিল নদীর তীরে বোমা নিষ্ক্রিয় করার প্রক্রিয়া। হঠাৎই বোমা নিষ্ক্রিয় করার সময় ভয়ঙ্কর আওয়াজ কেঁপে উঠলো নদীর অপর প্রান্ত হুগলি। আওয়াজের জেরে বেশ কয়েকটি বাড়ির দরজা,জানালা ভেঙে পড়ে। মুহুর্তের মধ্যে আতঙ্ক গ্রাস করে হুগলি নদী তীরবর্তী বেশ কয়েকটি গ্রামকে। এমনকি বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের বাড়ির কাচ হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। আদালত থেকেও কর্মীরা বাইরে বেরিয়ে আসেন। এই ঘটনার পিছনে হুগলি এলাকার বাসিন্দারা প্রশাসনকে কাঠগড়ায় তুলেছেন। তাদের দাবি বোমা নিষ্ক্রিয়করণের ফলে তাদের বাড়ির বহু জিনিস ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সঠিকভাবে উপযুক্ত পরিকাঠামো না নিয়ে বোমা নিষ্ক্রিয় করায় এই ধরনের ঘটনা ঘটল। এখনও এলাকার মানুষ আতঙ্কে প্রহর গুনছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে।

 327 total views,  1 views today

Leave a Reply